Winner 2014

০১. ট্রাফিক জ্যাম :
Gravity BD

টিমের নাম : গ্র্যাভিটি বিডি
টিমের সদস্য: আদনান আহমেদ খান (দলনেতা), আরমান আহমেদ হিমেল, বিশ্বজিৎ পান্ডে, বাপ্পী দত্ত, রাশিদুল হাসান।
বিশ্ববিদ্যালয় : আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: ট্রাফিক নাউ

আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শেষ বর্ষের ছাত্ররা যানযট সমস্যার সমাধান দিয়েছেন ট্রাফিক নাউ নামের একটি মোবাইল এ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে। এই এ্যাপ্লিকেশনে ঢাকা শহরের বিভিন্ন ট্র্যাফিক সিগন্যালের প্রতি মুহুর্তের যানবাহনের চাপ দেখা যাবে। এ্যাপ্লিকেশনটি ওপেন করলেই ব্যবহারকারী নাউ নামে একটি বাটন দেখতে পাবেন, সেখানে প্রেস করলেই একটি ম্যাপ ইন্টারফেস ওপেন হবে। এই ম্যাপটিতে ব্যবহারকারীর বর্তমান অবস্থান থেকে আশেপাশের একটি নির্দিষ্ট দূরুত্বের ভিতরে সব সিগন্যালে যানবাহনের চাপ দেখানো হবে। যানবাহনের পরিমাণ বোঝাতে ইন্টারফেসটিতে ভিন্ন ভিন্ন রঙের মার্কার ব্যবহার রয়েছে। ব্যবহারকারীর অবস্থান থেকে গন্তব্য পর্যন্ত পৌঁছাতে কোন রুট ব্যবহার করলে সবচেয়ে কম সময় লাগবে এবং সর্বনিম্ন যানজটের মুখোমুখি হতে হবে তার একটি পরামর্শ প্রদান করবে এই এ্যাপ। যানযট ছাড়াও ব্যবহারকারী তার গন্তব্য স্থলে যাওয়ার পথে কোথাও অগ্নি সংযোগের ঘটনা অথবা দুর্ঘটনা, রাস্তা/ বৈদ্যুতিক কাজ চলমান থাকলে সেই জায়গাগুলোকে চিহ্নিত অবস্থায় দেখতে পাবেন।

যানযট কমানোর লক্ষ্যে রাস্তায় চলমান গাড়িগুলোর সর্বাধিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে, এই এ্যাপ্লিকেশনে পিক মি নামক বাটনে প্রেস করার মাধ্যমে লিফট চাওয়ার সুযোগ রয়েছে। ব্যবহারকারীর নিজের অবস্থান থেকে আশেপাশের কারা কোথায় যাওয়ার জন্যে লিফট চেয়েছেন সেটা দেখতে পাবেন। ম্যাপে তাদের ছবিসহ গন্তব্যস্থল উল্লেখ থাকবে। এখন শুধু একই গন্তব্যের যাত্রীদের গাড়িতে তুলে নেবার পালা। এই কাজটিও করবেন এই এ্যাপ্লিকেশনের আরেকজন ব্যবহারকারী।

 

০২. সাইক্লোন সেন্টার ম্যানেজমেন্ট :
UIU Ambassadors
টিমের নাম : ইউ.আই.ইউ অ্যাম্বাসেডর
টিমের সদস্য: মোঃ খালিদ সাইফুল্লাহ (দলনেতা), পার্থ প্রতিম সূত্রধর, মোঃ নাজমুল আহসান, মাহমুদুর রাশিদ, তাসফিকুল বারী।
বিশ্ববিদ্যালয় : ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: আস্থা

ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ছাত্রদের তৈরীকৃত এ্যাপ্লিকেশনটির নাম আস্থা। এই এ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করার জন্য প্রথমেই ব্যবহারকারীকে তার মোবাইল নম্বর দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সাইক্লোন আঘাত হানতে পারে এমনসব এলাকার রেজিস্ট্রেড ব্যবহারীদের যেকোন ধরণের মুঠোফোনে সাইক্লোনের পূর্বাভাস বার্তা পৌঁছে যাবে। মোবাইল অপারেটরের মাধ্যমে এই বার্তা পাঠানো হবে। উপকূলবর্তী যে ১৬টি জেলায় সাইক্লোন হয়ে থাকে সেখানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা তুলনামূলকভাবে কম থাকার কারণে অ্যাপ্লিকেশনটি মূলত প্রশাসনিকভাবে ব্যবহারের জন্যই তৈরী করা হয়েছে। তবে সাধারণ ব্যবহারকারীও অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করে নিজেদের মোবাইল নাম্বার রেজিষ্ট্রেশন করতে পারবেন, এছাড়া সাইক্লোন সেন্টারের দায়িত্বরত ব্যক্তিও সাধারণ মানুষের মোবাইল নাম্বার নিবন্ধন করাতে পারবেন। দূর্যোগের সময় সাইক্লোন সেন্টারে অবস্থানরত শিশু, নারী, পুরুষ, গর্ভবতী নারীর সংখ্যা ও বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ইত্যাদি তথ্য সাইক্লোন সেন্টারের দায়িত্বরত ব্যক্তি অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে ডাটাবেজে পাঠাবেন। দূর্যোগকালীন সময়ে যদি মোবাইল ইন্টারনেট সংযোগ না থাকে তবে তথ্য মোবাইলে সংরক্ষিত হবে এবং পরবর্তীতে যখনই সংযোগ পাবে তখনই তথ্য ডাটাবেজে চলে যাবে। সাইক্লোন সেন্টার থেকে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে কোন এলাকায় কোন ত্রাণ বেশি প্রয়োজন তার একটি তালিকা তৈরী হবে। এই তালিকাটি সাধারণ ব্যবহারকারীরাও দেখতে পারবেন এবং ত্রাণদাতারা সেই অনুযায়ী প্রকৃত অর্থে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় সঠিক ত্রাণ পৌঁছাতে পারবে।

এছাড়া দীর্ঘদিন ব্যবহার না হওয়ার কারণে সাইক্লোন সেন্টারগুলোতে যেসকল কাঠামোগত সমস্যা তৈরী হয়, তা সাইক্লোন সেন্টারের দায়িত্বরত ব্যক্তি তথ্য আকারে এবং ছবির মাধ্যমে উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানাতে পারবে। উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষ সেই তথ্য অনুযায়ী সাইক্লোন সেন্টারগুলোতে অর্থ বরাদ্দ করতে পারবেন।

 

০৩. দুর্নীতি :
Trillion Pixel
টিমের নাম : ট্রিলিয়ন পিক্সেল
টিমের সদস্য: সাকিব হাসান (দলনেতা), শিহাবুল হোসেন সানি, তাসিন আলম তানিম, মারুফ-উর রহমান, গুলশান জুবায়েদ প্রিন্স।
বিশ্ববিদ্যালয় : ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: গেম্বিট

ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের টিম ট্রিলিয়ন পিক্সেল এর বানানো গেম্বিট নামের অ্যাপ্লিকেশনটি দুর্নীতি দমনে কাজ করে যাবে। দুর্নীতি হতে পরে এমন কোন স্থানে অথবা এমন কোন ব্যক্তির কাছে যাওয়ার সময় এটি চালু করলে এটি পরিপার্শ্বের অডিও রেকর্ড করতে শুরু করবে। যার ফলে দুর্নীতিগ্রস্থ ব্যক্তির সঙ্গে করা কথোপকথনটি রেকর্ড হয়ে যাবে। যদি তিনি কোন ধরণের অসাধু পন্থা অবলম্বনের কথা বলে থাকেন সেক্ষেত্রে ব্যবহারকারী উক্ত ব্যক্তির নাম, পদ, অফিস এবং দুর্নীতির বিবরণসহ রিপোর্ট করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে রেকর্ডকৃত অডিওসহ দুর্নীতিগ্রস্থ ব্যক্তির তথ্য একটি নির্দিষ্ট সার্ভারে পৌঁছে যাবে। সার্ভারে আসা অডিও ফাইল গুলো পরীক্ষা করে এর সত্যতা যাচাই করে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে অথবা একাধিক রিপোর্ট আসা ব্যক্তির গতিবিধি পরবর্তীতে পর্যবেক্ষণ করা হবে।

এছাড়াও অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে ব্যবহারকারী অডিও ফাইলসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, টুইটারে নির্দিষ্ট হ্যাসট্যাগসহ শেয়ার করতে পারবেন। যার ফলে জনসচেতনতা বাড়বে, সাধারণ জনসাধারণের দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলার একটি সুযোগ সৃষ্টি হবে এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে সবাই ঐক্যবদ্ধ হবে। এছাড়াও অধিক জনপ্রিয়তা অর্জনে এই অ্যাপ্লিকেশনটি অসাধু দুর্নীতিগ্রস্থ ব্যক্তির ভয়ের কারণ হতে পারে। এভাবে দেশে দুর্নীতির হার অনেক কমে আসবে।

 

০৪. যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা:
Buddies Dream
টিমের নাম : বাডিস ড্রিম
টিমের সদস্য: এনামুল হাসান (দলনেতা), মাহমুদুল হাসান, বনি আমিন রেজওয়ান, শেখ তৌকিরুল আলম, ফয়সাল আহমেদ।
বিশ্ববিদ্যালয় : ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: অজানা কথা

প্রকৃতপক্ষে যৌন ও প্রজনন স্বাস্থ্য সমস্যা এদেশের অন্যতম উল্লেখযোগ্য সমস্যার মধ্যে একটি। এই সমস্যার সমাধান দিয়ে ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি’র ছাত্ররা তৈরী করেছেন অজানা কথা নামে একটি মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অধিকাংশ অভিভাবকরা বুঝতে পারেনা না যে তাদের বয়ঃসন্ধিকালীন ছেলেমেয়েদের সাথে কেমন আচরণ করা উচিত। এই এ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে অভিভাবকরা কিশোর কিশোরী পর্যায়ের সন্তানদের সাথে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে নিজেদের দায়িত্ব, কর্তব্য ও আচারণের একটি বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণসহ পরামর্শ গ্রহণ করতে পারবেন। অপরদিকে ছেলে কিংবা মেয়ে তার বয়ঃসন্ধিকালীণ সময় বা তার পূর্ববর্তী অথবা পরবর্তী সময়ে যেসকল যৌন ও প্রজনন সম্পর্কিত সমস্যার সম্মুখিন হতে পারেন, তা এ্যাপ্লিকেশনটির বিভিন্ন শ্রেণীভাগের মাধ্যমে সেই সমস্যার কারণ ও সমাধানের ধারণাটি ব্যবহারকারী সহজেই পেয়ে যাবেন। ধারণাগুলোকে আরো সহজবোধ্য করার জন্য এ্যানিমেটেড ভিডিও’র মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের প্রক্রিয়া দেখার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এই এ্যাপ্লিকেশনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ হচ্ছে এর ব্যবহারকারী প্রয়োজনীয় নিকটস্থ চিকৎসকের ও হেল্থ কমপ্লেক্সের যোগাযোগের ঠিকানা ও ফোন নাম্বার খুঁজে পাবেন। এছাড়াও ব্যবহারকারী একটি এসএমএস সাপোর্ট পাবেন যার মাধ্যমে তিনি অ্যাপসের নির্ধারিত জায়গায় তার সমস্যার কথা লেখার মাধ্যমে বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য সেবা পাবেন।

এই এ্যাপ্লিকেশনটি অভিভাবকসহ বয়ঃসন্ধিকালীন বাংলাদেশের সকল কিশোর কিশোরী। তবে এ্যাপ্লিকেশনটি বাংলা ভাষাতে নির্মিত হওয়ায় দেশের সকল সাধারণ মানুষই এটা থেকে প্রয়োজনীয় সঠিক তথ্য ও পরামর্শ গ্রহণ করতে পারবেন। এই এ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন স্বাস্থ্য বিষয়ক উদ্যোগ সহজেই দেখতে ও জানতে পারবেন। এর ফলে সাধারণ মানুষ, সরকার ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাঝে একটি যোগাযোগ সেতু তৈরি সম্ভব হবে।

 

০৫. অসংক্রামক রোগ:
BrackU Hennk
টিমের নাম : ব্র্যাক ইউ হেনক
টিমের সদস্য: নাহিদ কামাল (দলনেতা), সাইদ এরফান আরেফিন, শাহনেওয়াজ আহমেদ নাবিল, কৌশিক দীপ্ত দাশ জয়, তাশনিয়া আশরাফি হেয়া।
বিশ্ববিদ্যালয় : ব্র্যাক বিশ্বেবিদ্যালয়

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: স্মার্ট ডক্টর

অসংক্রামক রোগের পরীক্ষা ও পরামর্শের জন্য ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা বানিয়েছেন স্মার্ট ডক্টর নামের একটি মোবাইল এ্যাপ। এটি ব্যবহারের জন্য প্রত্যেক নতুন ব্যবহারকারীকে প্রথমেই একটি নিবন্ধন প্রক্রিয়ার ভেতর দিয়ে যেতে হবে যেখানে ব্যবহারকারীর সকল শারীরিক অবস্থার রেকর্ড থাকবে। এ্যাপ্লিকেশনে পূর্ব নির্ধারিত কিছু প্রশ্নের উত্তর প্রদানের মাধ্যমে ব্যবহারকারী কোন ধরনের অসংক্রামক রোগ যেমন যেমন ডায়বেটিস, অ্যাজমা, হৃদরোগ, কিডনি বিষয়ক জটিলতা ইত্যাদিতে আক্রান্ত কি’না সেটা জানতে পারবেন। ব্যবহারকারীর রেড জোনে আছেন কি’না সেটাও জানতে পারবেন এবং এ্যাপ্লিকেশনটির সাহায্যে রোগের ধরণ অনুযায়ী কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষাও সম্পন্ন করতে পারবেন।

ধরা যাক, ব্যবহারকারী জানতে চায়ছেন তিনি কি’না। তাহলে তাকে এ্যাপ্লিকেশনের অ্যাজমা অপসনটি সিলেক্ট করতে হবে এবং “আপনার শর্ট ব্রিদিং হয় কিনা ?” “অল্পতেই টায়ার্ড হয়ে যান কিনা ?” ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর প্রদানের মাধ্যমে তিনি অ্যাজমা আক্রান্ত কি’না জানতে পারবেন। তবে কোন ব্যবহারকারী যদি তার শর্ট ব্রিদিং প্রোব্লেম সম্পর্কে না জানেন তাহলে এ্যাপ্লিকেশনের “চেক” অপসনটি সিলেক্ট করে সহজেই বুঝতে নিতে পারবেন যে তিনি এই সমস্যায় ভুগছেন কি’না। কফ পরীক্ষা করার জন্য সাধারন আলোতে এক টুকরা সাদা কাগজের উপরে ব্যবহারকারী তার কফ রেখে কফ মোবাইলের মাধ্যমে ছবি তুলে “ইমেজ প্রসেসিং” এর মাধ্যমে এটি কফের কালার, ধরণ এবং রঙ নির্ধারণ করবে যা নিবন্ধনের সময় ব্যবহারকারী প্রদানকৃত তথ্য থেকে মিলিয়ে উত্তর দিবে যে তিনি অ্যাজমায় আক্রান্ত কি’না। একই ভাবে এ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে ব্যবহারকারীর সুবিধামতো সময়ে ভিন্ন ভিন্ন পরীক্ষার মাধ্যমে ডায়াবেটিকস্, হৃদরোগ, কিডনি জটিলতা ইত্যাদি রোগ সম্পর্কে জানা যাবে। এরপর রোগের অবস্থা অনুযায়ী এ্যাপসের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর এলাকারা ডাক্তারের সাথে এ্যাপয়েন্টমেন্ট করা যাবে অথবা অন লাইন ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহণ করা যাবে।
যাদের স্মার্ট ফোন নেই তাদের কথা মাথায় রেখে একই সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন একটি ওয়েবসাইট প্রস্তুত করছে এই দলটি।

 

০৬. স্বাস্থ্য সম্মত আচরণগত পরিবর্তন :
Cosmuter
টিমের নাম : কজমিউটার
টিমের সদস্য: ইমরান এ সাগর (দলনেতা), ফজলে রাব্বি, সোহেল সরওয়ার, আখতারুজ্জামান আরিফ।
বিশ্ববিদ্যালয় : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: সেইভ দ্য রিভার

সেভ দা রিভার মূলত একটি সচেতনতা সৃষ্টিকারী গেম প্রজেক্ট। শিশুদের মাঝে স্যানিটেশন ও এদেশের নদীনালার গুরুত্ব সৃষ্টি করাই গেমটির মূল উদ্দেশ্য। স্যানিটেশন সমস্যার কারণে সমাজের যে সকল উপাদান ক্ষতিগ্রস্থ হয় তাদের প্রতিনিধি হিসেবে এখানে নদীনালাকে উপস্থাপন করা হয়েছে। গেমটি খেলার মাধ্যমে শিশুরা স্যানিটেশনের গুরুত্ব বোঝার সাথে সাথে এদেশের নদী, এর দূষণের মাত্রা এবং রক্ষা করার উপায় সম্পর্কে জানতে পারবে।

একটি নৌকার আরোহী হয়ে এই নদীপথে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছাতে খেলোয়াড় নানা ধরনের বর্জ্য ও স্বাস্থ্য ঝুঁকি সম্পন্ন বাঁধা অতিক্রম করবে, যেগুলো তাকে ধ্বংস করতে হবে। কারও সাহায্য ছাড়াই যেন শিশুরা গেমটি খেলতে পারে একারণে কন্ট্রোলিং সিস্টেম তাদের উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে। গেমটি খেলতে খেলতে একঘেয়ামি কাটানোর জন্য এখানে পদ্মা, কর্ণফুলী ও বুড়িগঙ্গা নামে তিনটি লেভেল রাখা হয়েছে। দূষণের মাত্রা বিবেচনা করে এ তিনটি লৈভেল তৈরি করা। এজন্য পদ্মা লেভেলটি সহজ, কর্ণফুলী মধ্যম কঠিন এবং বুড়িগঙ্গা অধিক কঠিন হিসেবে রাখা হয়েছে।

গেমটি UNITY 3D গেম ইঞ্জিন দিয়ে 2D ফরমেটে তৈরি করা হয়েছে। আপাতত এটি এ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্মে তৈরি করা হলেও অতি শিগ্রই এর IOS এবং Windos ভার্সন বের করা হবে। গেমটির কন্ট্রোলিং সিস্টেমে আনলিমিটেড ফায়ার এবং রোটেশান মুভমেন্ট ব্যাবহার করা হয়েছে যা যথেষ্ট ইউজার ফ্রেন্ডলি।

 

০৭. নিরাপদ নৌ-পরিবহন :
Brain Station-23
টিমের নাম : ব্রেইন স্টেশন ২৩
টিমের সদস্য: আবদুল্লাহ ফয়সাল (দলনেতা), অতীশ কুমার দিপঙ্কর, মো. জাকারিয়া, মো. আশরাফুল ইসলাম, কাজী ফয়সাল আরেফিন অভি।
প্রতিষ্ঠান : ব্রেইন স্টেশন ২৩ ডট কম

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: বিএস-ডাব্লিউটিএস (ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেফটি)

‘নিরাপদ নৌ পরিবহন ব্যবস্থা’ নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে ব্রেইন স্টেশন ২৩ তৈরী করেছেন বিএস-ডাব্লিউটিএস (ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেফটি) নামের মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন। এই এ্যাপ্লিকেশনটি ব্যাবহারের মাধ্যমে যাত্রী প্রথমেই জেনে নিতে পারবেন গন্তব্য রুটে চলাচলকারী লঞ্চ/ স্টিমারটি বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থা কর্তৃক অনুমোদিত কি’না। লঞ্চটির যাত্রী ধারণ ক্ষমতা, ফিটনেস এবং নৌপথে অনুমোদন সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পাশাপাশি নির্দিষ্ট দিন এবং সময়ে যাত্রী তার গন্তব্যস্থলটি ইনপুট করে তিনি উক্ত দিনের আবহাওয়া এবং ঐ নৌপথ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য আগাম জেনে নিতে পারবেন। যাত্রাপথে লঞ্চটি কোন কোন লঞ্চঘাটে যাত্রী উঠানামা করতে পারবে (অনুমোদিত) এ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে সেটিও জানা সম্ভব হবে। এ্যাপ্লিকেশনটি একই সাথে যাত্রাপথে প্রায়শই দুর্ঘটনা ঘটে এমন দুর্ঘটনাপ্রবণ স্থানসমূহ, নতুন জেগে উঠা চর সমূহ ইত্যাদি সম্পর্কে যাত্রী/ চালকদের আগাম সতর্কতা সংকেত প্রদান করবে। দূর্ঘটনা কিংবা ডাকাতি এমন ধরনের অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতিতে ‘জরুরী সহায়তা’ বাটনে প্রেস করার মাধ্যমে ঐ দূর্ঘটনা স্থলের নিকটস্থ নৌ/ পুলিশ থানা, নৌকর্তৃপক্ষ ও পরিবারের প্রিয়জনদেরকে মুহুর্তেই এসএমএস পাঠিয়ে সহায়তা চাইতে পারবেন। এছাড়া নৌপথে যাতায়াতকালীন সাধারণ নির্দেশিকা, নিজস্ব রুট সেটআপ, সোশ্যাল শেয়ারিং’, যাত্রীসেবা সম্পর্কিত প্রয়োজনীয় অভিযোগ ও মতামত প্রদান ইত্যাদি সুবিধা রয়েছে।

এককথায় নৌপথে যাতায়াতপূর্ব ও যাতায়াতকালীন প্রায় সকল যাত্রী জিজ্ঞাসা, সতর্কতা ও জরুরী সহায়তা সুবিধাসম্বলিত এই মোবাইল এ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহারের মাধ্যমে নৌপথে ঘটমান দূর্ঘটনা প্রতিরোধ ও আগাম সতর্কতা প্রদানের মাধ্যমে নিরাপদ নৌ-পরিবহনে সহায়ক ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে এই এ্যাপ্লিকেশন। অবশ্য এজন্য একটি কেন্দ্রীয় ডাটাবেজে নৌ-কর্তৃপক্ষ নৌপথ সংক্রান্ত সর্বশেষ আবহাওয়া বার্তা, জরুরী নির্দেশিকা, বিশেষ বার্তা ইত্যাদি পরিস্থিতি আপডেট রাখতে হবে।

 

০৮. প্রশ্নপত্র ফাঁস :
Team Trimatrik
টিমের নাম : টিম ত্রিমাত্রিক
টিমের সদস্য: এমএম হোসেন দ্বীপ (দলনেতা), মেহেদী হাসান বাপ্পী, ফুয়াদ সৈয়দ, খান ইয়াসির আরাফাত, মীর আশরাফ আলী রনক, মহুদ্দিন বুলবুল।
বিশ্ববিদ্যালয় : ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: দ্যা গার্ড

পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়া বন্ধ করতে এবং কেন্দ্রের প্রতিটি হলে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি’র ছাত্ররা তৈরী করেছেন দ্যা গার্ড নামের একটি মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন। এই এ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের ফলে পরীক্ষার হলে ডিজিটাল ন্যানো ডিভাইসের মাধ্যমে পরীক্ষার হলে জালিয়াতির সুযোগ বন্ধ হবে। এই এ্যাপ্লিকেশনে কয়েক ধাপে জালিয়াতি বন্ধের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। যেমন- এ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে জেএসসি/ পিএসসি/ এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদেরকে স্বতন্ত্র ছজ কোডের ভিত্তিতে সনাক্ত করা যাবে। এর ফলে যেমন সময় বাঁচবে তেমনি একজনের পরীক্ষা অন্য কেউ দিয়ে দিতে পারবে না। পরীক্ষার হলে যদি কেউ কোন ধরনের ব্লুটুথ ডিভাইস অন করে তাহলে ব্লুটুথ ডিভাইস ডিটেকশন নামের ফিচারটির সাহায্যে এই এ্যাপ্লিকেশনটি সতর্ক সংকেত প্রদান করবে এবং সেটি কত দূরত্বে আছে সেটা নির্দেশ করবে। একইভাবে পরীক্ষা কেন্দ্রের আসেপাশে কেঊ ওয়াই-ফাই হটস্পট সৃষ্টি করলে সেটিও নির্দেশ করবে। মোবাইল ডিভাইস ট্রাকারের মাধ্যমে এই এ্যাপ্লিকেশনের সাহায্যে মোবাইল ডিভাইস ট্রাক করাও সম্ভব হবে। এছাড়া হোম অপশনে সবসময় হলের স্ট্যাটাস আপডেট করা হবে যেখানে কত জন স্টুডেন্ট উপস্থিত ও কতটা ডিভাইস ডিটেক্ট করা হয়েছে তা থাকবে।

 

০৯. যৌন হয়রানি :
RITL
টিমের নাম : রূপম আইটি
টিমের সদস্য: ইকরাম হোসেন, মতিউর রহমান শাওন, মোহাম্মদ হানিফ, মোস্তাফিজুর রহমান, হিশাম রুম্মান।
প্রতিষ্ঠান : রূপম আইটি লিমিটেড

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: ডাক

যৌন হয়রানির মতো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে রূপম আইটি লিমিটেড এর ডেভলপাররা তৈরী করেছেন ডাক নামের একটি মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন। আক্রান্ত নারীদের ডাকে তাৎক্ষনিক ভাবে সাহায্য ও আশা পৌঁছে দেওয়াই এই এ্যাপ্লিকেশনের প্রধান উদ্দেশ্য। আক্রান্ত হবার বিভিন্ন পরিস্থিতি ও পর্যায় বিবেচনা করে এ্যাøিকেশনটিতে সর্বমোট ৬টি মুডে কাজ করবে। যেমন-

ইমাজেন্সি মুড : বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে পুলিশ অথবা অন্য কেউ সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসার আগেই দুর্ঘটনা ঘটে যায়। জরুরী ভিত্তিতে ঐ ব্যক্তিকে সাহায্য করার জন্য ডাক এর ইমাজেন্সি মোড এক্টিভেট করে আশে পাশের ১ কিঃমিঃ এর মধ্যে সকল ডিভাইসে জরুরী অ্যালার্ম বাজিয়ে সাহায্যের জন্য একটি রিকোয়েস্ট পাঠাবে । যদি কেউ ঐ রিকোয়েস্ট গ্রহণ করে তাহলে গুগল ম্যাপ এর মাধ্যমে সহজে ঐ বিপদে পড়া ব্যক্তি কাছে যেতে পারবেন এবং সে এটাও দেখতে পারবেন আর কয়জন তাকে সাহায্য করতে আসছেন। এছাড়াও পুলিশ এবং আগে থেকে সেভ করা নাম্বার ব্যবহারকারীর বিপদের বর্ণনা এবং লোকেশান সহ একটি এসএমএস চলে যাবে।

সেফটি মুড : জরুরী অবস্থা ছাড়াও যেকোন আশঙ্কায় ব্যাবহারকারী তার রিয়েলটাইম লোকেশন তার সেভ করা নাম্বার গুলোর সাথে শেয়ার করতে পারেন।

ট্রাভেল মুড: ভ্রমনের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারী সিএনজি বা কোন যানবাহনে উঠার আগে ঐ যানবাহনের নাম্বার প্লেট এর ছবি তুলে তার কাছের বিশ্বস্ত কারো সাথে শেয়ার করতে পারবেন। আবার যানবাহনে উঠার পর তিনি কোথায় যাবেন তা গুগল ম্যাপে লোকেশান সিলেক্ট করে দিলে ব্যবহারকারীকে গন্তব্যে পৌঁছানোর সম্ভাব্য সকল রাস্তা দেখানো হবে, যদি কোন কারণে ঐ যানবাহন ঐ সম্ভাব্য রাস্তা থেকে সরে যায় তাহলে ব্যবহারকারীর ফোনে অ্যালার্ম বেজে উঠবে এমনকি সে তার লোকেশান বিশ্বস্ত কারো সাথে শেয়ার করতে পারবে এবং একই ভাবে ঐ ব্যক্তির ফোনেও অ্যালার্ম বেজে উঠবে।

হট-কি: ব্যবহারকারী যদি এমন অবস্থায় পড়েন যে তিনি ফোন ব্যবহার করার সুযোগ পাচ্ছেন না তাহলে এই মুডে তিনি তার ফোনের পাওয়ার এবং ভলিউম আপ বাটন একসাথে ৩ সেকেন্ড ধরে রাখলে ইমার্জেন্সি মুড এক্টিভেট হয়ে যাবে ।

ফেক কল : অফিস কিংবা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে কাউকে এড়িয়ে যাবার জন্য এটি ব্যাবহার করা যেতে পারে। শুধুমাত্র টাইম, নাম এবং নাম্বার সেট করে দিলে ঐ সেট করা নাম এবং নাম্বার থেকে ঐ সময়ে একটি ফেক কল বেজে উঠবে এবং ঐ কল রিসিভ করে কথা বলার ভান ধরে ব্যবহারকারী যেকোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়িয়ে যেতে পারেন।

হেল্প লাইন: ব্যবহারকারী চাইলে এ্যাপ্লিকেশনে সংরক্ষিত লিস্ট থেকে জেলা ভিত্তিক পুলিশ এবং বিভিন্ন সামাজিক সংস্থার নাম্বারে সাহায্যের জন্য কল করতে পারবেন।

 

১০. সড়ক নিরাপত্তা :
Mobio men
টিমের নাম : মোবিও ম্যান
টিমের সদস্য: ফিদা মুনতাসির (টিম লীডার), ফরহাদ আন নাঈম, আবিদ হাসান শাওন, শরিফ-উল-ইসলাম, তানভীর আহমেদ।
প্রতিষ্ঠান : মোবিও এ্যাপ লিমিটেড

এ্যাপ্লিকেশনের নাম: নিরাপদ যাত্রা

সড়ক দুর্ঘটনা রোধের মাধ্যমে মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্য নিয়ে মোবিওম্যান তৈরী করেছে নিরাপদ যাত্রা নামের এন্ড্রয়ড এ্যাপ্লিকেশন। এই অ্যাপের অন্যতম সুবিধা হচ্ছে SOS সার্ভিস। এর মাধ্যমে ব্যাবহারকারী কোন দূর্ঘটনায় পতিত হলে এক ক্লিকে তার অবস্থান নিকটস্থ উদ্ধারকারী সংস্থার কাছে পৌঁছাতে পারবেন। এছাড়া এ্যাপ্লিকেশনটিতে রয়েছে ছবি, জিপিএস অবস্থানসহ সড়ক দুর্ঘটনা রিপোর্ট করার সুবিধা। রয়েছে ম্যাপ যার মাধ্যমে ব্যাবহারকারী তার বর্তমান অবস্থানের চারপাশে অথবা নির্দিষ্ট দুই অবস্থানের মধ্যকার ঝুঁকিপূর্ণ স্থানসমূহ দেখতে পারবেন। ব্যাবহারকারী ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার নিকটবর্তী হলে নোটিফিকেশন পাবেন। এছাড়া ম্যাপের মাধ্যমে আশপাশের থানা, হাসপাতাল, ফায়ার ব্রিগেডের অবস্থান দেখা এবং এ্যাপসের মাধ্যমে তাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করার সুবিধা।

সাধারণ মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য রয়েছে ট্রাফিক আইন, ট্রাফিক চিহ্নসমূহের বিবরণ ও সংশ্লিষ্ট ভিডিও দেখার সুবিধা। এছাড়া রয়েছে অত্যাধুনিক ‘অগমেন্টেড রিয়েলিটি প্রযুক্তির মাধ্যমে ট্রাফিক চিহ্নসমূহ শনাক্তকরণ। কো ধরনের দুর্ঘটনা সংঘটিত হলে তাৎক্ষনিক প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কিত তথ্য এবং টর্চ/ সাইরেন এর ব্যবস্থা রয়েছে এই এ্যাপ্লিকেশনে। এছাড়া রয়েছে দুর্ঘটনার খবর জানার জন্য নিউজ ফিড এবং নোটিফিকেশনের সুবিধা। এর বাইরে এ্যাপের মাধ্যমে ব্যাবহারকারী গাড়ি চালক বা পরিবহনের ব্যাপারে মতামত বা অভিযোগ জানাতেও পারবেন। ভবিষ্যতে এই এ্যাপে আরও প্রয়োজনীয় সুযোগ সুবিধা যোগ করার সুযোগ ও পরিকল্পনা রয়েছে।

Powered by themekiller.com anime4online.com animextoon.com apk4phone.com tengag.com moviekillers.com